পেটের মেদ কমানোর ব্যায়াম

পেটের মেদ বা শরীর এর মেদ কমানোর জন্য ব্যায়াম বাধ্যতামূলক। কারণ শুধু মাত্র ডায়েট ঠিক রেখে পরিশ্রম না করে কখনো মেদ কমানো সম্ভব না।  তাই মেদ কমাতে নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে। পেটের মেদ কমানোর কয়েকটি ব্যায়াম।

১ম পদ্ধতিঃ

লেগ রেইজেস

এটাও বিছানায় শুয়েই করতে পারবেন। শুধু দুটো পা বিছানা থেকে ৪৫ ডিগ্রি আঙ্গেলে উঠিয়ে যতক্ষণ পারেন (পেটের মাসলে জ্বলুনি শুরু না হওয়া পর্যন্ত) ধরে রাখুন। পুরো ৪৫ ডিগ্রি না পারলে এক ফিট ওঠানর চেষ্টা করুন। এটা আপনার পেটের চর্বি ম্যাজিকের মত কমিয়ে দেবে। আর ভুঁড়ি বাড়তে দেবে না। ব্যায়াম করার অভ্যাস না থাকলে রেস্ট নিয়ে নিয়ে দশ বার করার চেষ্টা করুন।

২য় পদ্ধতিঃ

সিট-আপস

পেটের মাসলের স্ট্রেংথ বাড়ানোর জন্য সিট-আপস জাতীয় ব্যায়াম করতে পারেন। মাটিতে সোজা হয়ে শুয়ে পড়ুন। দুই হাঁটু ভাঁজ করুন। দুই হাত মাথার নিচে রাখুন। এরপর আস্তে আস্তে শরীরের ওপরের অংশ মাটি থেকে তোলার চেষ্টা করুন। মাঝামাঝি অবস্থানে যেতে কয়েক সেকেন্ড থাকুন। পরে ক্রমেই শোয়া অবস্থায় ফিরে যান। শুরুতে তিন থেকে পাঁচবার করলেই যথেষ্ট।

৩য় পদ্ধতিঃ

১। চিত্র অনুযায়ী প্রথমে একটি সমতল জায়গায় পা দুখানি সামনে বাড়িয়ে দিয়ে বসে পরুন। শরীর হবে সোজা। শিরদ্বারা সোজা রাখতে হবে। জোরে জোরে নিঃশ্বাস নিন এবং ছাড়ুন। এই কাজটি কয়েকবার করুন। তারপর দু হাত এমন ভাবে দুই পাশে ছড়িয়ে দিন যেন যতটুকু সম্ভব সোজা হয়ে থাকে ও সবচেয়ে বেশি দুরুত্ব অতিক্রম করে।

২। তারপর চিত্র বি এর মত করে একবার ঘড়ির কাটার দিকে এবং কাটার বিপরীত দিকে ঘুরতে থাকুন। হাত দুটো তে যেন কোন ভাজ না পড়ে সে দিকে লক্ষ্য রাখুন। এভাবে কয়েকবার করে করুন। কমপক্ষে ১০ বার করে করতে থাকুন।

৩। চিত্র সি এর মতন করে দান হাত টি প্রথমে বাম পায়ের বৃদ্ধা আঙ্গুল এর শীর্ষ ভাগে ছোঁয়ার চেষ্টা করুন এবং কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। ঠিক একই ভাবে বাম হাত এবং ডান পা কাজে লাগান ও অপেক্ষা করুন। এতে আপনার পেটের উপর কাজ হবে এবং মেদ কমাতে সাহায্য করবে। এভাবে আরো ১০ বার করে করতে থাকুন। এই ব্যায়ামটি প্রতিদিন একই সময়ে করতে হবে।

৪র্থ পদ্ধতিঃ

এই পদ্ধতি তে পেটের মেদ কমানোর সাথে সাথে হাতের এবং পায়ের উরুর মেদ কমাতে সাহায্য করবে। যাদের হাত শরীর এর চেয়ে মোটা ও পায়ে গায়ের তুলনায় বেশি মেদ, তারা খুব সহজেই এই ব্যায়াম এর সাহায্য নিতে পারেন।

১। সোজা হয়ে বসে পা দুটো সামনের দিকে লম্বা করে রাখুন। পূর্বের ন্যায় কয়েকবার নিঃশ্বাস গ্রহণ ও ত্যাগ করুন। এবার দুই পাকে হাঁটুর মাঝ বরাবর ভাঁজ করে নিন। তারপর আস্তে আস্তে হাঁটুকে বুকের কাছে নিয়ে আসুন। বাম থেকে প্রথম চিত্রের মত। যতটুকু সম্ভব বুকের কাছে নিয়ে অপেক্ষা করুন।

২। পা কে বুকের সাথে ধরে রেখে আস্তে আস্তে পিছনের দিকে শুয়ে যান এবং আবার উঠে বসার চেষ্টা করুন। এভাবে কয়েকবার করুন। কমপক্ষে ৮-১০ বার।

৩। হাতের কাছে ডাম্বেল থাকলে তা নিয়ে অথবা ভারি কিছু নিয়ে ৩য় ও ৪র্থ চিত্রের মত নিচ থেকে উপরে ও উপর থেকে নিচে রাখুন। ১০ থেকে ১৫ বার এভাবে করুন। তবে লক্ষ্য রাখবে কোমর যেন সোজা থাকে।

প্রথম প্রথম ১৫ মিনিট ব্যায়াম করুন। তারপর আস্তে আস্তে সেই সময় বাড়িয়ে নিন। আশা করছি আপনিও খুব শীঘ্রই চিকন পেটের অধিকারী হতে পারবেন। তবে ব্যায়াম সবসময় একই সময়ে করতে চেষ্টা করুন।

৫ম পদ্ধতিঃ

বাইসাইকেল ক্রাঞ্চ

১। প্রথমে মেঝেতে সোজা হয়ে শুয়ে পরুন।
২। হাতদুটো মাথার পেছনে রাখুন। দুই পা সোজা করে একটু উপরে ওঠান।
৩। এবার বাম পা সোজা রেখে ডান পা ভেঙে বুকের কাছে নিয়ে আসুন।
৪। এসময় আপনার কোমড় থেকে উপরিভাগ বাম দিকে একটু কাত করুন।
৫। একইভাবে ডান পা সোজা রেখে বাম পা ভেঙে পূণরায় করুন, যেন মনে হয় আপনি শুয়ে শুয়ে সাইকেল চালাচ্ছেন।
৬। এই ব্যায়ামটি এক মিনিট করে প্রতিদিন ৩বার করার চেষ্টা করুন। এটি আপনার পেটের পেশীর ওপর অনেক চাপ সৃষ্টি করে, যা মেদ কমাতে কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

Written By
More from Health Aide

Natural Antibiotics and its Impact on your Health

Are you down with a fever? Or you are suffering from severe cold...
Read More

Leave a Reply